মুড়ির দাম কমবে

এবারের বাজেটে মুড়ির ভ্যাট অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তাই প্যাকেটজাত মুড়ির দাম কমতে পারে। উৎপাদন পর্যায়ে মুড়ির ভ্যাট অব্যাহতি দেয়ায় এটি ভোক্তা পর্যায়ে গিয়ে কমবে।

এছাড়াও তাজা ফল ব্যবসায়ীদের জন্য সুখবর। ব্যবসায়ী পর্যায়ে ফলের ওপর ভ্যাট প্রত্যাহার করা হয়েছে। তাই ফলের দাম কমতে পারে।
আর কৃষি যন্ত্রপাতি যেমন থ্রেসার মেশিন, পাওয়ার রিপার, পাওয়ার টিলার, অপারেটেড সিডার, কম্বাইন্ড হারভেস্টর, রোটারি টিলার, উইডার (নিড়ানি) ও উইনোয়ার (ঝাড়াইকল) আমদানিতে আগাম কর অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তাই এসব পণ্যের দাম কমতে পারে।

মাইক্রেবাস: নসিমন ও লেগুনার মতো দুর্ঘটনাপ্রবণ যানবাহন ব্যবহার নিরুৎসাহিত করতে সিসিভেদে মাইক্রোবাস আমদানিতে শুল্ক কমানো হয়েছে। তাই মাইক্রোবাসের দাম কমতে পারে।
হাইব্রিড গাড়ি: নিæ সিসির হাইব্রিড হাইব্রিড গাড়ির সম্পূরক কমানো হয়েছে। তাই জ্বালানি বান্ধব গাড়ির দাম কমতে পারে।

রড: রড তৈরির প্রধান উপকরণ স্ক্র্যাপ আমদানিতে আগাম কর প্রত্যাহার করা হয়েছে। তাছাড়া উৎপাদনকারীদের কর ৩ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২ শতাংশ করা হয়েছে। এতে স্থাপনা নিমার্ণের প্রধান উপকরণ রডের দাম কিছুটা হলেও কমতে পারে।

সিমেন্ট: রডের মতো সিমেন্ট তৈরির প্রধান কাঁচামাল ক্লিংকারের অগ্রিম আয়কর ৩ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২ শতাংশ করা হয়েছে। তাই সিমেন্টের দামে এর প্রভাব পড়তে পাবে।

টাইলস: টাইলস কিউব আমদানিতে সম্পূরক শুল্ক ৬০ শতাংশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। তাই টাইলসের দাম কমবে। মোটরসাইকেল: চার স্ট্রোক বিশিষ্ট বিযুক্ত সিকেডি মপড মোটরসাইকেলের আমদানি শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে। তাছাড়া দেশে উৎপাদিত মোটরসাইকেলের কাঁচামালের শুল্ক কমানো হয়েছে। তাই মোটরসাইকেলের দাম কমতে পারে। অবশ্য আমদানিকৃত (সিবিইউ) মোটরসাইকেল কিনতে আগের মতো অর্থ খরচ করতে হবে।

হোম অ্যাপ্লায়েন্স: দেশে হোম অ্যাপ্লায়েন্সসামগ্রী যেমন ওয়াশিং মেশিন, মাইক্রোওয়েভ ওভেন, ইলেকট্রিক ওভেন, ব্লেন্ডার, জুসার, মিক্সার, গ্রাইন্ডার, ইলেকট্রিক কেটলি, রাইস কুকার, মাল্টি কুকার ও প্রেসার কুকার উৎপাদনে উপকরণ-যন্ত্রাংশ আমদানিতে ভ্যাট দেয়া হয়েছে। তাই আগামীতে এসব পণ্যের দাম কমতে পারে।

পোল্ট্রি মুরগি: পোল্ট্রি মুরগির খাদ্য তৈরির উপকরণ ও ওষুধ আমদানিতে রেয়াতি সুবিধা দেয়া হয়েছে। তাই মুরগির খাবার ও ওষুধের কমতে পারে। এর প্রভাবে আগামীতে পোল্ট্রি মুরগির দামও কমতে পারে।

খেলনাসামগ্রী: দেশে খেলনা উৎপাদনকে উৎসাহিত করতে ৭ ধরনের যন্ত্রাংশ ও উপকরণে শুল্ক ছাড় দেয়া হয়েছে। তাই দেশে তৈরি খেলনার দাম কমতে পারে।
আরও দাম কমতে পারে যেসব পণ্যের সেগুলো হচ্ছেÑ স্টেইলনেস স্টিল, ডাম্পার ট্রাক, শিল্পে ব্যবহƒত অগ্নি নির্বাপক যন্ত্রপাতি, এলইডি লাইট, শিরিষ কাগজ, শঙ্খ, পেপার কাপ।

মন্তব্যর উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন