আসছে উইন্ডোজ-১১ সান ভ্যালি

অনেক জল্পকল্পনার অবসান ঘটিয়ে এবার বাজারে আসছে উইন্ডোজ-১১। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২৪জুন ২০২১ তারিখে উদ্বোধন করা হবে নতুন এই ‘উইন্ডোজ ১১’
কি থাকছে উইন্ডোজের নতুন ভার্সনে? এটা কি ব্যবহারকারীদের মন রক্ষা করতে পারবে? উইন্ডোজ-এর অতীত ভার্সনগুলোর মধ্যে ‘উইন্ডোজ-৮’ ভার্সনের নানা রকম সমস্যার কারণে মাইক্রোসফটকে পড়তে হয়েছিল ব্যপক সমালোচনা ও তোপের মুখে। পরবর্তীতে দ্রুততম সময়ে অভিষেক হয়েছিল উইন্ডোজ-১০ এর। এবং উইন্ডোজ-৮ ব্যবহারকারীদেরকে বিনা পয়সায় উইন্ডোজ-১০ আপডেট করে দেওয়া হয়েছিলো এবং বলা হয়েছিল উইন্ডোজ-১০ ই হবে হয়তো উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের শেষ ভার্সন। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতিও মাইক্রোসফট রাখতে পারলো না কারণ উইন্ডোজ-১০ এও রয়েছে বেশ কিছু বাগ, তাই সব ভুলভ্রান্তি দুর করে নতুন করে একটি আধুনিক মাপের অপারেটিং সিস্টেমের সূচনা করতে যাচ্ছে মাইক্রোসফট কর্পোরেশন।
কী থাকছে উইন্ডোজ-১১ তে?
উইন্ডোজ-১১ এর মূল চমক হচ্ছে এর ‘মাইক্রোসফট স্টোর’। উইন্ডোজ-৮ ও উইন্ডোজ-১০ স্বল্প পরিসরে ‘মাইক্রোসফট স্টোর’ থাকলেও নতুন এই ভার্সনের জন্য মাইক্রোসফট স্টোরকে ডিজাইন করা হয়েছে নতুনভাবে। উইন্ডোজ এর বিভিন্ন ধরনের সফটওয়্যার থাকবে এই ‘মাইক্রোসফট স্টোর’-এ এবং এখান থেকেই ইন্টস্টল করতে হবে সবকিছু। তবে নতুন এই ‘মাইক্রোসফট স্টোর’এ বড় ধরনের সুযোগ রয়েছে ডেভেলপারদের জন্য। এই স্টোরে ডেভেলপাররা তাদের ডেভেলপ করা অ্যাপ্লিকেশন আপলোড করে রাখতে পারবেন এবং ব্যবহারকারীরা ফ্রি কিংবা টাকার বিনীময়ে সেসব অ্যাপ্লিকেশন সরাসরি ‘মাইক্রোসফট স্টোর’থেকে ডাউনলোড ও ইনস্টল করতে পারবেন, ঠিক যেমনটি গুগল প্লে-স্টোর এর ক্ষেত্রে হয়ে থাকে।
ইউজার ইন্টারফেস কিংবা লুক-এন্ড-ফিল এর বেলাতেও বেশ আকর্ষণীয় করা হয়েছে। বিভিন্ন আইকনগুলিতে চারকোনাচের পরিবর্তে করা হয়েছে কিছুটা গোলাকৃতির। সিকিউরিটি ফিচারেও বেশ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে নতুন এই ভার্সনে। তবে চলমান উইন্ডোজ ১০ কে এই নতুন এই উইন্ডোজ ১১ ভার্সনে আপডেট সুবিধা নাও থাকতে পারে অর্থ্যাৎ এই ভার্সনটি নতুন করে কিনে নিতে হবে।
সব মিলিয়ে চমক দেখার অপেক্ষায় থাকুন আগামী ২৪জুন।

মন্তব্যর উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন