ঢাকা ০৯:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যাত্রাবাড়ীমুখী সব সড়কে দীর্ঘ যানজট, ভোগান্তি

রাজধানী ঢাকায় প্রবেশ এবং বের হওয়ার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পথ যাত্রাবাড়ী। ৫ দিক থেকে ৫টি সড়ক মিলেছে এই এক মোড়ে। জনসাধারণকে ঢাকা থেকে নরসিংদী হয়ে সিলেট বিভাগে, নারায়ণগঞ্জ হয়ে কুমিল্লা বা চট্টগ্রাম বিভাগে এবং পদ্মাসেতু হয়ে দক্ষিণবঙ্গে যেতে হলে ব্যবহার করতে হয় এ মোড়। অতিগুরুত্বপূর্ণ এ মোড়ে এসে মিলেছে যে কয়টি সড়ক, তার সবগুলোতে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়েছে। সোমবার থেকে চলমান এ জট মঙ্গলবার সকালে এসে প্রকট আকার ধারণ করেছে। এতে বিভিন্ন প্রয়োজনে ঢাকায় প্রবেশ করা এবং ঢাকা থেকে বের হওয়া মানুষ পড়েছে চরম ভোগান্তিতে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দেখা গেছে, যানজট যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা, কাজলা থেকে শনির আখড়া, রায়েরবাগ ছাড়িয়ে মাতুয়াইল মেডিকেল পর্যন্ত চলে গেছে। অন্যদিকে বাসাবো, কমলাপুর থেকে যানজট শুরু হয়ে যাত্রাবাড়ী মোড় পর্যন্ত ঠেকেছে। আবার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত সড়কেও আছে যানজট। মূলত যাত্রাবাড়ী থেকে এ পাশে ঢাকার মধ্যে যানজট থাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গাড়ি প্রবেশ করতে পারছে না। এজন্য মহাসড়কের ওই অংশেও যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

 

একই সঙ্গে শনির আখড়া বা রায়েরবাগ এলাকা থেকে গুলিস্তানে চলাচল করা লোকাল গাড়ির সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন হাজার হাজার মানুষ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার সকাল থেকেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট। মূলত যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা দিয়ে গাড়ি ঢাকায় ধীরে ধীরে প্রবেশ করছে। একই সঙ্গে মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারেও যানজট দেখা দিয়েছে।

গুলিস্তান-রায়েরবাগ রুটে চলাচলকারী শ্রাবণ পরিবহনের একজন কর্মী জানান, ঈদের কারণে লোকাল গাড়িগুলো দূরের বিভিন্ন গন্তব্যে যাত্রী নিয়ে গেছে। তাই গাড়ি কম।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে বুধবার বা বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। এ কারণে দূর-দূরান্তে থাকা প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ করতে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ।

যাত্রাবাড়ীমুখী সব সড়কে দীর্ঘ যানজট, ভোগান্তি

আপডেট সময় : ১২:১২:১৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ এপ্রিল ২০২৪

রাজধানী ঢাকায় প্রবেশ এবং বের হওয়ার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পথ যাত্রাবাড়ী। ৫ দিক থেকে ৫টি সড়ক মিলেছে এই এক মোড়ে। জনসাধারণকে ঢাকা থেকে নরসিংদী হয়ে সিলেট বিভাগে, নারায়ণগঞ্জ হয়ে কুমিল্লা বা চট্টগ্রাম বিভাগে এবং পদ্মাসেতু হয়ে দক্ষিণবঙ্গে যেতে হলে ব্যবহার করতে হয় এ মোড়। অতিগুরুত্বপূর্ণ এ মোড়ে এসে মিলেছে যে কয়টি সড়ক, তার সবগুলোতে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়েছে। সোমবার থেকে চলমান এ জট মঙ্গলবার সকালে এসে প্রকট আকার ধারণ করেছে। এতে বিভিন্ন প্রয়োজনে ঢাকায় প্রবেশ করা এবং ঢাকা থেকে বের হওয়া মানুষ পড়েছে চরম ভোগান্তিতে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দেখা গেছে, যানজট যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা, কাজলা থেকে শনির আখড়া, রায়েরবাগ ছাড়িয়ে মাতুয়াইল মেডিকেল পর্যন্ত চলে গেছে। অন্যদিকে বাসাবো, কমলাপুর থেকে যানজট শুরু হয়ে যাত্রাবাড়ী মোড় পর্যন্ত ঠেকেছে। আবার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত সড়কেও আছে যানজট। মূলত যাত্রাবাড়ী থেকে এ পাশে ঢাকার মধ্যে যানজট থাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গাড়ি প্রবেশ করতে পারছে না। এজন্য মহাসড়কের ওই অংশেও যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

 

একই সঙ্গে শনির আখড়া বা রায়েরবাগ এলাকা থেকে গুলিস্তানে চলাচল করা লোকাল গাড়ির সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন হাজার হাজার মানুষ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার সকাল থেকেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট। মূলত যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা দিয়ে গাড়ি ঢাকায় ধীরে ধীরে প্রবেশ করছে। একই সঙ্গে মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারেও যানজট দেখা দিয়েছে।

গুলিস্তান-রায়েরবাগ রুটে চলাচলকারী শ্রাবণ পরিবহনের একজন কর্মী জানান, ঈদের কারণে লোকাল গাড়িগুলো দূরের বিভিন্ন গন্তব্যে যাত্রী নিয়ে গেছে। তাই গাড়ি কম।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে বুধবার বা বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। এ কারণে দূর-দূরান্তে থাকা প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ করতে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ।