ঢাকা ০৭:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফ্ল্যাট ভাড়া নেয়া সেই যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কোথায়?

মনিটর এর দাম জানতে এখন-ই ক্লিক করুন

কলকাতার নিউ টাউনের সঞ্জিভা গার্ডেন্সের একটি ফ্ল্যাটে ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) আনোয়ারুল আজিম আনারকে হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ভারতীয় গোয়েন্দারা। ওই ফ্ল্যাটটি (৫৬বিইউ) একজন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ভাড়া নিয়েছিলেন বলে জানা গেছে। কিন্তু কে এই যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী? কোথায় আছেন তিনি?

সঞ্জিভা গার্ডেন্সের ফ্ল্যাটেই এমপি আনারকে হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের আইজি (সিআইডি) অখিলেশ চতুর্বেদী জানিয়েছেন, তাদের কাছে ক্লু আছে যে সঞ্জিভা গার্ডেন্সের ‘৫৬বিইউ’ ফ্ল্যাটের ভেতরেই বাংলাদেশের এমপিকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে।

 
কিন্তু হত্যার পর এমপি আনারের মরদেহ কোথায় নেয়া হয়েছে, সে বিষয়টি এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
 
যে ফ্ল্যাটে এমপি আনারকে হত্যা করা হয়েছে, সেটির মালিক কে এবং কার কাছে ভাড়া দেয়া হয়েছিল; অখিলেশ চতুর্বেদীর কাছে সেই প্রশ্ন রেখেছিলেন স্থানীয় সাংবাদিকরা।

জবাবে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের আইজি (সিআইডি) বলেন, ‘ওই ফ্ল্যাটের মালিকের নাম সন্দ্বীপ রায়। তিনি রাজ্য সরকারের শুল্ক দফতরের একজন কর্মকর্তা। আর ফ্ল্যাটটি যিনি ভাড়া নিয়েছিলেন তিনি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। তার নাম আখতারুজ্জামান। সেই ফ্ল্যাটেই গত ১৩ মে উঠেছিলেন এমপি আনার।’  
এরপরই উপস্থিত সাংবাদিকরা জানতে চান, এই আখতারুজ্জামান কি ভারতীয় এবং তিনি কলকাতায় থাকেন কিনা। তবে তদন্তের স্বার্থে এসব প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যান অখিলেশ চতুর্বেদী। 
এর আগে কলকাতার পুলিশ সূত্রে জানা যায়, তারা দুটি মোবাইলের নেটওয়ার্ক ট্র্যাক করছিল। সেখান থেকেই দেখা গেছে, সঞ্জিভা গার্ডেন্সই এমপি আনারের শেষ লোকেশন ছিল। এরপরই পুলিশের তদন্তকারী দল সেখানে যায় এবং সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে। সেই ফুটেজ খতিয়ে দেখে পুলিশের তদন্তকারী দলের সদস্যরা নিশ্চিত হন, এমপি আনার সেখানে গিয়েছিলেন এবং তিনি একাই সেখানে যান।

এরপরই এমপি আনারের ওই ফ্ল্যাটে ঢোকেন পরপর তিনজন। তারমধ্যে একজন নারীও ছিলেন। এই তিনজনকে আবার প্রায় আড়াই ঘণ্টা পর বেরিয়েও যেতে দেখা যায়। এছাড়া ওই ফ্ল্যাটে ঢোকার জন্য তড়িঘড়ি করে একটি গাড়িও কয়েকবার আসা-যাওয়া করে। 
 
জানা গেছে, সেই গাড়ির নম্বর ধরেই এখন তদন্ত চলছে। এছাড়া আরও কিছু অ্যাপ ক্যাবের নেটওয়ার্ক ও তার চালককে এরমধ্যেই আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন গোয়েন্দারা।
 
ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম ১২ মে চিকিৎসার জন্য দর্শনা সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান। ১৬ মে থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন তিনি।

সকল প্রকার কম্পিউটার পূন্যের দাম জানতে এখন-ই ক্লিক করুন

ফ্ল্যাট ভাড়া নেয়া সেই যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কোথায়?

আপডেট সময় : ১২:০১:৩৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪

কলকাতার নিউ টাউনের সঞ্জিভা গার্ডেন্সের একটি ফ্ল্যাটে ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) আনোয়ারুল আজিম আনারকে হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ভারতীয় গোয়েন্দারা। ওই ফ্ল্যাটটি (৫৬বিইউ) একজন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ভাড়া নিয়েছিলেন বলে জানা গেছে। কিন্তু কে এই যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী? কোথায় আছেন তিনি?

সঞ্জিভা গার্ডেন্সের ফ্ল্যাটেই এমপি আনারকে হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের আইজি (সিআইডি) অখিলেশ চতুর্বেদী জানিয়েছেন, তাদের কাছে ক্লু আছে যে সঞ্জিভা গার্ডেন্সের ‘৫৬বিইউ’ ফ্ল্যাটের ভেতরেই বাংলাদেশের এমপিকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে।

 
কিন্তু হত্যার পর এমপি আনারের মরদেহ কোথায় নেয়া হয়েছে, সে বিষয়টি এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
 
যে ফ্ল্যাটে এমপি আনারকে হত্যা করা হয়েছে, সেটির মালিক কে এবং কার কাছে ভাড়া দেয়া হয়েছিল; অখিলেশ চতুর্বেদীর কাছে সেই প্রশ্ন রেখেছিলেন স্থানীয় সাংবাদিকরা।

জবাবে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের আইজি (সিআইডি) বলেন, ‘ওই ফ্ল্যাটের মালিকের নাম সন্দ্বীপ রায়। তিনি রাজ্য সরকারের শুল্ক দফতরের একজন কর্মকর্তা। আর ফ্ল্যাটটি যিনি ভাড়া নিয়েছিলেন তিনি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। তার নাম আখতারুজ্জামান। সেই ফ্ল্যাটেই গত ১৩ মে উঠেছিলেন এমপি আনার।’  
এরপরই উপস্থিত সাংবাদিকরা জানতে চান, এই আখতারুজ্জামান কি ভারতীয় এবং তিনি কলকাতায় থাকেন কিনা। তবে তদন্তের স্বার্থে এসব প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যান অখিলেশ চতুর্বেদী। 
এর আগে কলকাতার পুলিশ সূত্রে জানা যায়, তারা দুটি মোবাইলের নেটওয়ার্ক ট্র্যাক করছিল। সেখান থেকেই দেখা গেছে, সঞ্জিভা গার্ডেন্সই এমপি আনারের শেষ লোকেশন ছিল। এরপরই পুলিশের তদন্তকারী দল সেখানে যায় এবং সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে। সেই ফুটেজ খতিয়ে দেখে পুলিশের তদন্তকারী দলের সদস্যরা নিশ্চিত হন, এমপি আনার সেখানে গিয়েছিলেন এবং তিনি একাই সেখানে যান।

এরপরই এমপি আনারের ওই ফ্ল্যাটে ঢোকেন পরপর তিনজন। তারমধ্যে একজন নারীও ছিলেন। এই তিনজনকে আবার প্রায় আড়াই ঘণ্টা পর বেরিয়েও যেতে দেখা যায়। এছাড়া ওই ফ্ল্যাটে ঢোকার জন্য তড়িঘড়ি করে একটি গাড়িও কয়েকবার আসা-যাওয়া করে। 
 
জানা গেছে, সেই গাড়ির নম্বর ধরেই এখন তদন্ত চলছে। এছাড়া আরও কিছু অ্যাপ ক্যাবের নেটওয়ার্ক ও তার চালককে এরমধ্যেই আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন গোয়েন্দারা।
 
ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম ১২ মে চিকিৎসার জন্য দর্শনা সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান। ১৬ মে থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন তিনি।