ঢাকা ১১:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এমপি আনারের লাশ গুমে ব্যবহৃত সাদা গাড়ি জব্দ

মনিটর এর দাম জানতে এখন-ই ক্লিক করুন

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে হত্যার পর খণ্ডিত মরদেহ গুম করতে ব্যবহার হওয়া সাদা রঙের একটি গাড়ি জব্দ করেছে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ।

এ সময় গাড়ি জব্দের পাশাপাশি এমপি আনার হত্যায় জোবায়ের নামে সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে বলে জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সিআইডি।

এর আগে এমপি আনোয়ারুল আজিম আনারকে বালিশচাপা দিয়ে শ্বাসরোধে খুন করার তথ্য পাওয়া যায়।

গত ১৩ মে নিউ টাউন এলাকার সঞ্জিভা গার্ডেনের একটি ফ্ল্যাটে খুন করা হয় আনারকে। প্রথমে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়। এরপর সেই বডি টুকরো টুকরো করা হয়। তিনদিন ধরে বডির পার্ট সরানো হয়। ১৪, ১৫ ও ১৮ মে বডির পার্ট সরানো হয়।

তবে এ কাজের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের এখনো কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। সূত্রমতে, তারাই জানে এমপি আনারের মরদেহ কোথায় আছে। ওই ফ্ল্যাট থেকে পুলিশ বেশ কিছু প্লাস্টিক ব্যাগ উদ্ধার করেছে বলেও জানা গেছে।

গত ১৩ মে ওই ফ্ল্যাটে উঠেছিলেন এমপি আনার। পরে আরও তিনজন সেখানে যায়। তাদের মধ্যে দুজনকে ১৪ মে সকালে একটি ট্রলি ব্যাগ নিয়ে বের হতে দেখা যায়। ওই দিন বিকেলের দিকে বেরিয়ে যান আরও একজন, সিসিটিভিতে ধরা পড়েছে সেই ছবি। কিন্তু ফ্ল্যাটে ঢুকতে দেখা গেলেও আনারকে বের হতে দেখা যায়নি। পারিপার্শ্বিক এ তথ্যপ্রমাণ থেকেই পুলিশ খুনের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে।

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য দর্শনা সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান। ১৬ মে থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন তিনি। ২২ মে তাকে খুন করার খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়।

 

সকল প্রকার কম্পিউটার পূন্যের দাম জানতে এখন-ই ক্লিক করুন

এমপি আনারের লাশ গুমে ব্যবহৃত সাদা গাড়ি জব্দ

আপডেট সময় : ০৩:০৩:০৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে হত্যার পর খণ্ডিত মরদেহ গুম করতে ব্যবহার হওয়া সাদা রঙের একটি গাড়ি জব্দ করেছে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ।

এ সময় গাড়ি জব্দের পাশাপাশি এমপি আনার হত্যায় জোবায়ের নামে সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে বলে জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সিআইডি।

এর আগে এমপি আনোয়ারুল আজিম আনারকে বালিশচাপা দিয়ে শ্বাসরোধে খুন করার তথ্য পাওয়া যায়।

গত ১৩ মে নিউ টাউন এলাকার সঞ্জিভা গার্ডেনের একটি ফ্ল্যাটে খুন করা হয় আনারকে। প্রথমে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়। এরপর সেই বডি টুকরো টুকরো করা হয়। তিনদিন ধরে বডির পার্ট সরানো হয়। ১৪, ১৫ ও ১৮ মে বডির পার্ট সরানো হয়।

তবে এ কাজের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের এখনো কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। সূত্রমতে, তারাই জানে এমপি আনারের মরদেহ কোথায় আছে। ওই ফ্ল্যাট থেকে পুলিশ বেশ কিছু প্লাস্টিক ব্যাগ উদ্ধার করেছে বলেও জানা গেছে।

গত ১৩ মে ওই ফ্ল্যাটে উঠেছিলেন এমপি আনার। পরে আরও তিনজন সেখানে যায়। তাদের মধ্যে দুজনকে ১৪ মে সকালে একটি ট্রলি ব্যাগ নিয়ে বের হতে দেখা যায়। ওই দিন বিকেলের দিকে বেরিয়ে যান আরও একজন, সিসিটিভিতে ধরা পড়েছে সেই ছবি। কিন্তু ফ্ল্যাটে ঢুকতে দেখা গেলেও আনারকে বের হতে দেখা যায়নি। পারিপার্শ্বিক এ তথ্যপ্রমাণ থেকেই পুলিশ খুনের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে।

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য দর্শনা সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান। ১৬ মে থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন তিনি। ২২ মে তাকে খুন করার খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়।