ঢাকা ০৯:৩৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডিপফেক ভিডিও কাণ্ডের যুবক গ্রেফতার, যা বললেন রাশমিকা

দক্ষিণী ও বলিউড সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা রাশমিকা মান্দানার একটি ডিপফেক ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। গত বছরের নভেম্বর মাসের সেই ঘটনার মূল অভিযুক্তকে দিল্লি পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

রাশমিকার ডিপফেক ভিডিও কাণ্ডটি ঘটিয়েছেন ২৪ বছরের এক যুবক। কেউ বলছেন, তাকে অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কারও দাবি উত্তরপ্রদেশ থেকে এ যুববকে ধরা হয়েছে। তার নাম ইমানি নবীন। তিনি অন্ধ্রের গুন্টুর জেলার বাসিন্দা। ঠিক কোন উদ্দেশ্য নিয়ে রাশমিকার ছবিতে কারসাজি করেছিলেন, তা গ্রেফতারের পর জানা গেছে। সেই সঙ্গে রাশমিকাও কথা বলেছেন এ নিয়ে।

গত নভেম্বরে একটি এক ব্রিটিশ-ভারতীয় সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও প্রযুক্তিগত কারচুপি করে এতে রাশমিকার মুখ স্থাপন করা হয়। গত ১০ নভেম্বর ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৬৫, ৪৬৯ ধারায় এবং তথ্যপ্রযুক্তি সংক্রান্ত আইনের ৬৬সি এবং ৬৬ই ধারায় দিল্লি পুলিশের পক্ষ থেকে এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল।

প্রায় ৫০০ প্রোফাইল ঘেঁটে খুঁজে বের করা হয় মূল হোতাকে। কিন্তু কেনো এমন কাণ্ড ঘটালেন তিনি তা পুলিশের জেরার মুখে নবীন স্বীকার করেন। তিনি রাশমিকার অনেক বড় ভক্ত। জানিয়েছেন, রাশমিকার একটি ফ্যানপেজ চালাতেন তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে নবীনের জবাব, ইনস্টাগ্রামে ফলোয়ার বাড়ানোর নেশাতেই তিনি এ কাজ করেছিলেন। তার ফলও পান তিনি। ফলোয়ার বাড়ে। তবে পরে পুলিশের ভয়ে সব তথ্য মুছে দিলেও পার পাননি এ যুবক।

অন্যদিকে দিল্লি পুলিশের সক্রিয়তা দেখে তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন রাশমিকা। তিনি এ প্রসঙ্গে ইনস্টাগ্রামে লেখেন, ‘অভিযুক্তকে আটক করার জন্য ধন্যবাদ। এমন একটা সময়ে সবার সমর্থন পেয়ে কৃতজ্ঞ আমি। পাশপাশি সব যুবক-যুবতীকে মনে করিয়ে দেব যে, কারও অনুমতি ছাড়া তার ছবি বা ভিডিও ব্যবহার করা উচিত নয়।’

 

ডিপফেক ভিডিও কাণ্ডের যুবক গ্রেফতার, যা বললেন রাশমিকা

আপডেট সময় : ০২:২৮:৫১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৪

দক্ষিণী ও বলিউড সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা রাশমিকা মান্দানার একটি ডিপফেক ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। গত বছরের নভেম্বর মাসের সেই ঘটনার মূল অভিযুক্তকে দিল্লি পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

রাশমিকার ডিপফেক ভিডিও কাণ্ডটি ঘটিয়েছেন ২৪ বছরের এক যুবক। কেউ বলছেন, তাকে অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কারও দাবি উত্তরপ্রদেশ থেকে এ যুববকে ধরা হয়েছে। তার নাম ইমানি নবীন। তিনি অন্ধ্রের গুন্টুর জেলার বাসিন্দা। ঠিক কোন উদ্দেশ্য নিয়ে রাশমিকার ছবিতে কারসাজি করেছিলেন, তা গ্রেফতারের পর জানা গেছে। সেই সঙ্গে রাশমিকাও কথা বলেছেন এ নিয়ে।

গত নভেম্বরে একটি এক ব্রিটিশ-ভারতীয় সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও প্রযুক্তিগত কারচুপি করে এতে রাশমিকার মুখ স্থাপন করা হয়। গত ১০ নভেম্বর ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৬৫, ৪৬৯ ধারায় এবং তথ্যপ্রযুক্তি সংক্রান্ত আইনের ৬৬সি এবং ৬৬ই ধারায় দিল্লি পুলিশের পক্ষ থেকে এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল।

প্রায় ৫০০ প্রোফাইল ঘেঁটে খুঁজে বের করা হয় মূল হোতাকে। কিন্তু কেনো এমন কাণ্ড ঘটালেন তিনি তা পুলিশের জেরার মুখে নবীন স্বীকার করেন। তিনি রাশমিকার অনেক বড় ভক্ত। জানিয়েছেন, রাশমিকার একটি ফ্যানপেজ চালাতেন তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে নবীনের জবাব, ইনস্টাগ্রামে ফলোয়ার বাড়ানোর নেশাতেই তিনি এ কাজ করেছিলেন। তার ফলও পান তিনি। ফলোয়ার বাড়ে। তবে পরে পুলিশের ভয়ে সব তথ্য মুছে দিলেও পার পাননি এ যুবক।

অন্যদিকে দিল্লি পুলিশের সক্রিয়তা দেখে তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন রাশমিকা। তিনি এ প্রসঙ্গে ইনস্টাগ্রামে লেখেন, ‘অভিযুক্তকে আটক করার জন্য ধন্যবাদ। এমন একটা সময়ে সবার সমর্থন পেয়ে কৃতজ্ঞ আমি। পাশপাশি সব যুবক-যুবতীকে মনে করিয়ে দেব যে, কারও অনুমতি ছাড়া তার ছবি বা ভিডিও ব্যবহার করা উচিত নয়।’