ঢাকা ০৩:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আত্মীয়ের বাড়িতে ঈদ উপহার দিয়ে ফেরার পথে ট্রেনের ধাক্কায় প্রবাসীর মৃত্যু

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলায় ট্রেনের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী এক প্রবাসী তরুণের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে উপজেলার হলহলিয়া রেলসেতুর পূর্ব দিকের রাস্তা পারাপারের সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত তরুণের নাম মিজানুর রহমান (২৮)। তিনি আক্কেলপুর উপজেলার হাজরাপাড়া গ্রামের মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে। মিজানুর রহমান মালয়েশিয়াপ্রবাসী ছিলেন। পরিবারের সঙ্গে ঈদ করতে দেড় মাস আগে ছুটিতে দেশে এসেছিলেন তিনি।

নিহতের পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালে মিজানুর রহমান মোটরসাইকেলে করে উপজেলার গণিপুর গ্রামে তাঁর খালার বাড়িতে যান। সেখানে ঈদ উপলক্ষে উপহারসামগ্রী পৌঁছে দিয়ে নিজের বাড়িতে ফিরছিলেন তিনি। পথে হলহলিয়া রেলসেতুর পূর্ব দিকে রেললাইন পার হওয়ার সময় চিলাহাটি ছেড়ে আসা ঢাকাগামী চিলাহাটি এক্সপ্রেস ট্রেন মিজানুরের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। এতে রেললাইনের পাশে পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। তাঁর মোটরসাইকেলটি ট্রেনের ইঞ্জিনের সামনে আটকে ঘটনাস্থল থেকে এক কিলোমিটার দূরে জাফরপুর স্টেশনে গিয়ে প্ল্যাটফর্মে ধাক্কা খায়। খবর পেয়ে স্বজনেরা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে মিজানুরের লাশ বাড়িতে নিয়ে যান।.

হলহলিয়া গ্রামের বাসিন্দা মজিদুল হক (৭০) বলেন, তিনি হলহলিয়া রেলসেতুর পূর্ব দিকে ঘটনাস্থল থেকে দেড় শ গজ দূরে রেললাইনের পাশে গরু চরাচ্ছিলেন। ঢাকাগামী একটি ট্রেনের ইঞ্জিনের সামনে মোটরসাইকেলটি আটকে ছিল। লোকজনের চিৎকার শুনে গিয়ে দেখেন মোটরসাইকেলচালকের ছিন্নভিন্ন দেহ রেললাইনের পাশে পড়ে আছে। খবর পেয়ে লোকজন এসে লাশটি হাজরাপাড়া গ্রামের প্রবাসী মিজানুরের বলে শনাক্ত করেন।

নিহতের মিজানুর রহমানের খালা নাইচ আক্তার কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘মিজানুর আজ সকালে আমার বাড়িতে এসে ঈদের বাজার দিয়ে গেছে। আমরাও তাঁকে ঈদের কিছু বাজার দিয়েছিলাম। আমার বাড়ি থেকে যাওয়ার আধা ঘণ্টা পর মিজানুরের মারা যাওয়ার খবর পেয়েছি।’

নিহতের বড় ভাই আব্দুল লতিফ বলেন, ‘মিজানুর মালয়েশিয়ায় ছিল। সে দেড় মাস আগে আমাদের সঙ্গে ঈদ করতে বাড়িতে এসেছিল। আমরা তার বিয়ের জন্য পাত্রী খোঁজ করছিলাম। খালার বাড়িতে ঈদের বাজার দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ট্রেনে ধাক্কায় মিজানুরের মৃত্যু হয়েছে। আমাদের ঈদের আনন্দ এখন বিষাদে পরিণত হয়েছে।’

আত্মীয়ের বাড়িতে ঈদ উপহার দিয়ে ফেরার পথে ট্রেনের ধাক্কায় প্রবাসীর মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৬:২১:৫৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ মার্চ ২০২৪

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলায় ট্রেনের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী এক প্রবাসী তরুণের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে উপজেলার হলহলিয়া রেলসেতুর পূর্ব দিকের রাস্তা পারাপারের সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত তরুণের নাম মিজানুর রহমান (২৮)। তিনি আক্কেলপুর উপজেলার হাজরাপাড়া গ্রামের মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে। মিজানুর রহমান মালয়েশিয়াপ্রবাসী ছিলেন। পরিবারের সঙ্গে ঈদ করতে দেড় মাস আগে ছুটিতে দেশে এসেছিলেন তিনি।

নিহতের পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালে মিজানুর রহমান মোটরসাইকেলে করে উপজেলার গণিপুর গ্রামে তাঁর খালার বাড়িতে যান। সেখানে ঈদ উপলক্ষে উপহারসামগ্রী পৌঁছে দিয়ে নিজের বাড়িতে ফিরছিলেন তিনি। পথে হলহলিয়া রেলসেতুর পূর্ব দিকে রেললাইন পার হওয়ার সময় চিলাহাটি ছেড়ে আসা ঢাকাগামী চিলাহাটি এক্সপ্রেস ট্রেন মিজানুরের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। এতে রেললাইনের পাশে পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। তাঁর মোটরসাইকেলটি ট্রেনের ইঞ্জিনের সামনে আটকে ঘটনাস্থল থেকে এক কিলোমিটার দূরে জাফরপুর স্টেশনে গিয়ে প্ল্যাটফর্মে ধাক্কা খায়। খবর পেয়ে স্বজনেরা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে মিজানুরের লাশ বাড়িতে নিয়ে যান।.

হলহলিয়া গ্রামের বাসিন্দা মজিদুল হক (৭০) বলেন, তিনি হলহলিয়া রেলসেতুর পূর্ব দিকে ঘটনাস্থল থেকে দেড় শ গজ দূরে রেললাইনের পাশে গরু চরাচ্ছিলেন। ঢাকাগামী একটি ট্রেনের ইঞ্জিনের সামনে মোটরসাইকেলটি আটকে ছিল। লোকজনের চিৎকার শুনে গিয়ে দেখেন মোটরসাইকেলচালকের ছিন্নভিন্ন দেহ রেললাইনের পাশে পড়ে আছে। খবর পেয়ে লোকজন এসে লাশটি হাজরাপাড়া গ্রামের প্রবাসী মিজানুরের বলে শনাক্ত করেন।

নিহতের মিজানুর রহমানের খালা নাইচ আক্তার কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘মিজানুর আজ সকালে আমার বাড়িতে এসে ঈদের বাজার দিয়ে গেছে। আমরাও তাঁকে ঈদের কিছু বাজার দিয়েছিলাম। আমার বাড়ি থেকে যাওয়ার আধা ঘণ্টা পর মিজানুরের মারা যাওয়ার খবর পেয়েছি।’

নিহতের বড় ভাই আব্দুল লতিফ বলেন, ‘মিজানুর মালয়েশিয়ায় ছিল। সে দেড় মাস আগে আমাদের সঙ্গে ঈদ করতে বাড়িতে এসেছিল। আমরা তার বিয়ের জন্য পাত্রী খোঁজ করছিলাম। খালার বাড়িতে ঈদের বাজার দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ট্রেনে ধাক্কায় মিজানুরের মৃত্যু হয়েছে। আমাদের ঈদের আনন্দ এখন বিষাদে পরিণত হয়েছে।’