ঢাকা ১১:২০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুন্সিগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলি, নিহত ১

মুন্সিগঞ্জ সদরের চরকেওয়ার ইউনিয়নে আধিপত্য নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত হয়েছেন। এ সময় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) ভোর ৪টার দিকে ইউনিয়নের ছোট মোল্লাকান্দি গ্রামে মামুন ও আহমেদ গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তারা দুজনই স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা। নিহত পারভেজ খা (২০) স্থানীয় পলাশ খার ছেলে।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ঘটনায় অপর গুলিবিদ্ধ রাব্বি খাকে (২৯) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন বাকিরা।

এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীরা জানান, এলাকায় আধিপত্যসহ নির্বাচনে পক্ষাবলম্বন নিয়ে মামুন ও আহমেদ গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলছিল। শুক্রবার দিনগত রাতে আবারও দুই গ্রুপ মুখোমুখি হলে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে শনিবার ভোরে দুইগ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে ঘরবাড়ি ভাঙচুর ও গুলি বিনিময় হয়। এতে আহমেদ গ্রুপের দুইজন গুলিবিদ্ধসহ বেশ কয়েকজন আহত হন।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মুন্সিগঞ্জ হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান পারভেজ। এ ঘটনায় উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি দোষারোপ করেছেন।

সদর থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, পূর্ব বিরোধ ও আধিপত্য নিয়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

মুন্সিগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলি, নিহত ১

আপডেট সময় : ১২:০৩:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

মুন্সিগঞ্জ সদরের চরকেওয়ার ইউনিয়নে আধিপত্য নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত হয়েছেন। এ সময় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) ভোর ৪টার দিকে ইউনিয়নের ছোট মোল্লাকান্দি গ্রামে মামুন ও আহমেদ গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তারা দুজনই স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা। নিহত পারভেজ খা (২০) স্থানীয় পলাশ খার ছেলে।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ঘটনায় অপর গুলিবিদ্ধ রাব্বি খাকে (২৯) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন বাকিরা।

এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীরা জানান, এলাকায় আধিপত্যসহ নির্বাচনে পক্ষাবলম্বন নিয়ে মামুন ও আহমেদ গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলছিল। শুক্রবার দিনগত রাতে আবারও দুই গ্রুপ মুখোমুখি হলে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে শনিবার ভোরে দুইগ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে ঘরবাড়ি ভাঙচুর ও গুলি বিনিময় হয়। এতে আহমেদ গ্রুপের দুইজন গুলিবিদ্ধসহ বেশ কয়েকজন আহত হন।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মুন্সিগঞ্জ হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান পারভেজ। এ ঘটনায় উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি দোষারোপ করেছেন।

সদর থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, পূর্ব বিরোধ ও আধিপত্য নিয়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।