ঢাকা ০১:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভাঙ্গায় ট্রাকের ধাক্কায় বাবা-ছেলেসহ নিহত ৩

মোটরসাইকেলে করে ছেলে মুরসালিন শিকদারকে (৮) ফরিদপুরের একটি মাদরাসায় ভর্তি করাতে নিয়ে যাচ্ছিলেন বাবা কাশেম শিকদার (৪০)। সঙ্গে ছিলেন ভাই নাজমুল শিকদার (৩৫)। পথে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার হামিরদি বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী ওই তিনজন নিহত হয়েছেন।
শনিবার (১১ মে) বেলা ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল্লাহেল বাকী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। নিহতরা সবাই গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বাটিকামারী ইউনিয়নের কহলদিয়া গ্রামের বাসিন্দা।
ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের হামিরদি বাসস্ট্যান্ডে পেছনদিক থেকে একটি ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হন।
নিহত শিশু মুরসালিনের মামা আবু বক্কর বলেন, আমার ভাগ্নে মুরসালিনকে ফরিদপুর শহরের একটি মাদরাসায় ভর্তি করাতে নিয়ে যাচ্ছিলেন ভগ্নিপতি। পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আমি এখন ভাঙ্গা হাইওয়ে থানায় আছি। আইনগত প্রক্রিয়া শেষে মরদেহগুলো নিয়ে বাড়িতে যাব।
ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল্লাহেল বাকী বলেন, দুর্ঘটনা কবলিত ট্রাক ও মোটরসাইকেল উদ্ধার করে থানায় এনে রাখা হয়েছে। এখন মরদেহগুলো পরিবারের সদস্যদের বুঝিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

ভাঙ্গায় ট্রাকের ধাক্কায় বাবা-ছেলেসহ নিহত ৩

আপডেট সময় : ০৪:২৪:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪
মোটরসাইকেলে করে ছেলে মুরসালিন শিকদারকে (৮) ফরিদপুরের একটি মাদরাসায় ভর্তি করাতে নিয়ে যাচ্ছিলেন বাবা কাশেম শিকদার (৪০)। সঙ্গে ছিলেন ভাই নাজমুল শিকদার (৩৫)। পথে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার হামিরদি বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী ওই তিনজন নিহত হয়েছেন।
শনিবার (১১ মে) বেলা ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল্লাহেল বাকী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। নিহতরা সবাই গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বাটিকামারী ইউনিয়নের কহলদিয়া গ্রামের বাসিন্দা।
ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের হামিরদি বাসস্ট্যান্ডে পেছনদিক থেকে একটি ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হন।
নিহত শিশু মুরসালিনের মামা আবু বক্কর বলেন, আমার ভাগ্নে মুরসালিনকে ফরিদপুর শহরের একটি মাদরাসায় ভর্তি করাতে নিয়ে যাচ্ছিলেন ভগ্নিপতি। পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আমি এখন ভাঙ্গা হাইওয়ে থানায় আছি। আইনগত প্রক্রিয়া শেষে মরদেহগুলো নিয়ে বাড়িতে যাব।
ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল্লাহেল বাকী বলেন, দুর্ঘটনা কবলিত ট্রাক ও মোটরসাইকেল উদ্ধার করে থানায় এনে রাখা হয়েছে। এখন মরদেহগুলো পরিবারের সদস্যদের বুঝিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।