ঢাকা ০৫:৪৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিরাজগঞ্জে পরিত্যক্ত ব্রিজ থেকে পড়ে প্রাণ গেল সাইকেল আরোহীর

মনিটর এর দাম জানতে এখন-ই ক্লিক করুন

সিরাজগঞ্জের চন্ডিদাসগাতিতে পরিত্যক্ত বেইলি ব্রিজ থেকে পড়ে এক সাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। শনিবার (৮ জুন) রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত সাইকেল আরোহীর নাম সাহেব আলী। তিনি সদর ইউনিয়নের বড়হামকুড়িয়া গ্রামের মৃত মঙ্গন আলীর ছেলে।

 
সিরাজগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার আতাউর রহমান জানান, শনিবার রাতে সদর উপজেলার চন্ডিদাসগাতিতে অন্ধকারে সাইকেল নিয়ে পরিত্যক্ত বেইলি ব্রিজ পার হচ্ছিলেন সাহেব আলী। ব্রিজ মেরামতের জন্য বেশ কয়েকটি পাটাতন খোলা ছিল, যার ফলে তিনি পানিতে পড়ে যান। পরে স্থানীয়রা জানালে তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান শুরু করে।
 
আতাউর রহমান আরও জানান, তাৎক্ষণিক সাহেব আলীর সাইকেল উদ্ধার হলেও প্রায় এক ঘণ্টার অভিযানের পর তার মরদেহ উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।
স্থানীয় বাসিন্দা তারেক বলেন, ‘সকালেও ব্রিজের পাটাতন ছিল। তখন অনেকেই সাইকেল নিয়ে পার হয়েছে। কিন্তু সড়ক বিভাগ দুপুরে ব্রিজের পাটাতন খুলে ফেললেও কোনো প্রকার সাইনবোর্ড বা বেরিকেড দেয়নি। এ জন্য সাহেব আলী কিছু বুঝতে পারেননি। না বুঝে রাতের অন্ধকারে ব্রিজ পার হবার সময় তিনি পানিতে পড়ে মারা যান।’
আরেক যুবক আশরাফ আলী বলেন, ‘সড়ক বিভাগের গাফিলতির কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিয়ম অনুযায়ী ব্রিজে কাজ করার সময় সতর্কতামূলক সাইনবোর্ড দেয়ার কথা। কিন্তু এই কাজে সড়ক বিভাগ কোনো প্রকার সাইনবোর্ড দেয়নি, এজন্যই একজনকে জীবন দিতে হলো।’

সকল প্রকার কম্পিউটার পূন্যের দাম জানতে এখন-ই ক্লিক করুন

সিরাজগঞ্জে পরিত্যক্ত ব্রিজ থেকে পড়ে প্রাণ গেল সাইকেল আরোহীর

আপডেট সময় : ০১:২৭:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০২৪

সিরাজগঞ্জের চন্ডিদাসগাতিতে পরিত্যক্ত বেইলি ব্রিজ থেকে পড়ে এক সাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। শনিবার (৮ জুন) রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত সাইকেল আরোহীর নাম সাহেব আলী। তিনি সদর ইউনিয়নের বড়হামকুড়িয়া গ্রামের মৃত মঙ্গন আলীর ছেলে।

 
সিরাজগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার আতাউর রহমান জানান, শনিবার রাতে সদর উপজেলার চন্ডিদাসগাতিতে অন্ধকারে সাইকেল নিয়ে পরিত্যক্ত বেইলি ব্রিজ পার হচ্ছিলেন সাহেব আলী। ব্রিজ মেরামতের জন্য বেশ কয়েকটি পাটাতন খোলা ছিল, যার ফলে তিনি পানিতে পড়ে যান। পরে স্থানীয়রা জানালে তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান শুরু করে।
 
আতাউর রহমান আরও জানান, তাৎক্ষণিক সাহেব আলীর সাইকেল উদ্ধার হলেও প্রায় এক ঘণ্টার অভিযানের পর তার মরদেহ উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।
স্থানীয় বাসিন্দা তারেক বলেন, ‘সকালেও ব্রিজের পাটাতন ছিল। তখন অনেকেই সাইকেল নিয়ে পার হয়েছে। কিন্তু সড়ক বিভাগ দুপুরে ব্রিজের পাটাতন খুলে ফেললেও কোনো প্রকার সাইনবোর্ড বা বেরিকেড দেয়নি। এ জন্য সাহেব আলী কিছু বুঝতে পারেননি। না বুঝে রাতের অন্ধকারে ব্রিজ পার হবার সময় তিনি পানিতে পড়ে মারা যান।’
আরেক যুবক আশরাফ আলী বলেন, ‘সড়ক বিভাগের গাফিলতির কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিয়ম অনুযায়ী ব্রিজে কাজ করার সময় সতর্কতামূলক সাইনবোর্ড দেয়ার কথা। কিন্তু এই কাজে সড়ক বিভাগ কোনো প্রকার সাইনবোর্ড দেয়নি, এজন্যই একজনকে জীবন দিতে হলো।’