ঢাকা ০২:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর গলায় ফাঁস

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুলার রোডে আদ্রিতা বিনতে মোশারফ (১৯) নামে এক শিক্ষার্থী গলায় ফাঁস নিয়েছেন। তিনি মার্কেটিং বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

শনিবার (৩০ মার্চ) দিনগত রাত ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। রোববার (৩১ মার্চ) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আদ্রিতার বাবা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. মোশারফ হোসেন। তিনি বলেন, আমার মেয়ে মার্কেটিং বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিল। সে দীর্ঘদিন ধরে শারীরিকভাবে অসুস্থ। অসুস্থ থাকার কারণে অসহ্য হয়ে তার নিজ রুমের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেয়।

তিনি আরও বলেন, আমাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার লাকসাম থানার মজলিশপুরে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুলার রোড ১৯ নম্বর ভবনের তৃতীয় তলায় থাকি আমরা।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, মরদেহ মর্গে রাখা আছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় জানানো হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর গলায় ফাঁস

আপডেট সময় : ১১:২১:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ এপ্রিল ২০২৪

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুলার রোডে আদ্রিতা বিনতে মোশারফ (১৯) নামে এক শিক্ষার্থী গলায় ফাঁস নিয়েছেন। তিনি মার্কেটিং বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

শনিবার (৩০ মার্চ) দিনগত রাত ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। রোববার (৩১ মার্চ) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আদ্রিতার বাবা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. মোশারফ হোসেন। তিনি বলেন, আমার মেয়ে মার্কেটিং বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিল। সে দীর্ঘদিন ধরে শারীরিকভাবে অসুস্থ। অসুস্থ থাকার কারণে অসহ্য হয়ে তার নিজ রুমের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেয়।

তিনি আরও বলেন, আমাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার লাকসাম থানার মজলিশপুরে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুলার রোড ১৯ নম্বর ভবনের তৃতীয় তলায় থাকি আমরা।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, মরদেহ মর্গে রাখা আছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় জানানো হয়েছে।