ঢাকা ১২:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কানে ডিভাইস লাগিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে বোন

Monitors Price in Bangladesh

পরীক্ষার্থী রিনা আক্তার আধাঘণ্টা অতিক্রমের পরেও উত্তরপত্রে কোনো কিছু না লিখে বসে ছিলেন। এতে সন্দেহ হয় কেন্দ্র পরিদর্শকের।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষাকেন্দ্রে অভিনব পদ্ধতিতে কানে বিশেষ ডিভাইস লাগিয়ে নকল করার সময় রিনা আক্তার নামক এক পরীক্ষার্থীকে আটক করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। তাকে নকলে

সহযোগিতা করার দায়ে তার ভাই আব্দুল জলিলকেও আটক করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৯ মার্চ) বেলা সোয়া ১১টায় জেলা শহরের পৌর ডিগ্রি কলেজ পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে দুজনকে আটক করা হয়। তাদের বাড়ি জেলার বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের টুকচানপুর গ্রামে।

পরীক্ষাকেন্দ্র ও ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, সকাল ১০টায় ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে চাকরিপ্রত্যাশীদের নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পৌর

ডিগ্রি কলেজের ১০১ নম্বর কক্ষে থাকা পরীক্ষার্থী রিনা আক্তার আধাঘণ্টা অতিক্রমের পরেও উত্তরপত্রে কোনো কিছু না লিখে বসে ছিলেন।

বিষয়টি কেন্দ্র পরিদর্শকের কাছে সন্দেহজনক মনে হলে তিনি কলেজের অধ্যক্ষকে জানান। এরপর কলেজ কর্তৃপক্ষ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানালে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তল্লাশি চালিয়ে ওই

পরীক্ষার্থীর কানের ভেতর থেকে ছোট একটি তারবিহীন অডিও ডিভাইস এবং তার সঙ্গে থাকা সিমসংযুক্ত এটিএম কার্ডের মতো দেখতে একটি ইলেকট্রনিক ডিভাইস উদ্ধার করা হয়।

ওই ডিভাইসের মাধ্যমে কেন্দ্রের বাইরে অপেক্ষারত রিনার ভাই জলিল তাকে প্রশ্নের উত্তর বলে দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন। পরে কেন্দ্রের বাইরে থেকে ভাইকেও আটক করা হয়।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম শেখ জানান, ‘ওই পরীক্ষার্থীর কান তল্লাশির কথা বলা হলে তখন তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে রূঢ় আচরণ শুরু করেন। এরপর নারী পুলিশ সদস্যদের দিয়ে তল্লাশি চালিয়ে তার

কাছ থেকে ডিভাইসগুলো উদ্ধার করা হয়।’

দুই ভাই-বোনকে আটকের পর তাদের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

BUY NOW YOUR PROUCT

কানে ডিভাইস লাগিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে বোন

আপডেট সময় : ০৮:৪২:২০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ মার্চ ২০২৪

পরীক্ষার্থী রিনা আক্তার আধাঘণ্টা অতিক্রমের পরেও উত্তরপত্রে কোনো কিছু না লিখে বসে ছিলেন। এতে সন্দেহ হয় কেন্দ্র পরিদর্শকের।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষাকেন্দ্রে অভিনব পদ্ধতিতে কানে বিশেষ ডিভাইস লাগিয়ে নকল করার সময় রিনা আক্তার নামক এক পরীক্ষার্থীকে আটক করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। তাকে নকলে

সহযোগিতা করার দায়ে তার ভাই আব্দুল জলিলকেও আটক করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৯ মার্চ) বেলা সোয়া ১১টায় জেলা শহরের পৌর ডিগ্রি কলেজ পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে দুজনকে আটক করা হয়। তাদের বাড়ি জেলার বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের টুকচানপুর গ্রামে।

পরীক্ষাকেন্দ্র ও ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, সকাল ১০টায় ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে চাকরিপ্রত্যাশীদের নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পৌর

ডিগ্রি কলেজের ১০১ নম্বর কক্ষে থাকা পরীক্ষার্থী রিনা আক্তার আধাঘণ্টা অতিক্রমের পরেও উত্তরপত্রে কোনো কিছু না লিখে বসে ছিলেন।

বিষয়টি কেন্দ্র পরিদর্শকের কাছে সন্দেহজনক মনে হলে তিনি কলেজের অধ্যক্ষকে জানান। এরপর কলেজ কর্তৃপক্ষ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানালে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তল্লাশি চালিয়ে ওই

পরীক্ষার্থীর কানের ভেতর থেকে ছোট একটি তারবিহীন অডিও ডিভাইস এবং তার সঙ্গে থাকা সিমসংযুক্ত এটিএম কার্ডের মতো দেখতে একটি ইলেকট্রনিক ডিভাইস উদ্ধার করা হয়।

ওই ডিভাইসের মাধ্যমে কেন্দ্রের বাইরে অপেক্ষারত রিনার ভাই জলিল তাকে প্রশ্নের উত্তর বলে দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন। পরে কেন্দ্রের বাইরে থেকে ভাইকেও আটক করা হয়।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম শেখ জানান, ‘ওই পরীক্ষার্থীর কান তল্লাশির কথা বলা হলে তখন তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে রূঢ় আচরণ শুরু করেন। এরপর নারী পুলিশ সদস্যদের দিয়ে তল্লাশি চালিয়ে তার

কাছ থেকে ডিভাইসগুলো উদ্ধার করা হয়।’

দুই ভাই-বোনকে আটকের পর তাদের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।